রং দেখলেই বুঝবেন কোন পাসপোর্ট কোন অঞ্চলের!

13

পাসপোর্ট হচ্ছে এক দেশের নাগরিকের অন্য দেশে ভ্রমণের উদ্দেশ্যে ব্যবহৃত দলিল। বিদেশ ভ্রমণের সময় হাতে থাকা ছোট এ বইটি আপনার সম্পর্কে অনেক কিছু বলে দেয়। সাধারণত, আপনার নিরাপত্তা, দেশের অভ্যন্তরীণ নিয়ম কানুন, জন্মসূত্র এসব নানাবিধ কারণে একজন ব্যক্তি একটা নির্দিষ্ট দেশের অধিবাসী হয়ে থাকেন। ফলে যেকোনো দেশের মানুষের পক্ষেই যত্রতত্র অন্য কোন দেশে গিয়ে বসবাস করার উপায় যেমন নেই তেমনি শুধুমাত্র ভ্রমণ কিংবা অন্য প্রয়োজনীয় কাজে গেলেও তাকে পাসপোর্ট নামক দলিলটির শরণাপন্ন হতে হবে। এটাই মূলত আপনার পরিচয়।

সবচেয়ে মজার বিষয় হল, ছোট এই বইয়ের রং দেখেও আপনার সম্পর্কে অনেক কিছু ধারণা করা যায়। বিশেষ করে আপনি কোন দেশ বা কোন অঞ্চল থেকে এসেছে সেটা বলে দেয় পাসপোর্টের রং। সাধারণত মানুষের কাছে সবুজ রংয়ের কাভার সম্বলিত পাসপোর্ট অধিক পরিচিত।

অনেকেরই ধারণা, সব দেশের মানুষের পাসপোর্ট এক রংয়ের হয়ে থাকে। কিন্তু দেশ এবং উপমহাদেশ ভেদে এই পাসপোর্টের রং ভিন্নতা বহন করে। কোন দেশের কোন রং হবে এটা নিয়ে কোনো বাঁধাধরা নিয়ম না থাকলেও পাসপোর্টের রং ঐ দেশ সম্পর্কে বহুজাতিক তথ্য প্রকাশ করে থাকে। একটা দেশের নিজস্ব সংস্কৃতি, রাজনীতি, বিশ্বাস, ধ্যান-ধারণা সব কিছুর পরিচয় বহন করে।

যদিও পাসপোর্টের রং নিয়ে আন্তর্জাতিক কোনও নীতিমালা নেই। তারপরও প্রতিটি দেশ বা অঞ্চল তাদের সংস্কৃতি, রাজনীতি, ধর্মীয় বিশ্বাস ইত্যাদির ভিত্তিতে পাসপোর্টে রং ব্যবহার করে বলে জানিয়েছে ব্রিটিশ পাসপোর্ট তৈরিকারক প্রতিষ্ঠান ডে লা রু।

এ বিষয়ে প্রতিষ্ঠানটির মতে, ইসলামিক দেশগুলো নিজেদের ধর্মের সাথে সঙ্গতি রেখে সবুজ পাসপোর্ট ব্যবহার করে। ইকোনোমিক কমিউনিটি অব ওয়েস্ট আফ্রিকান স্টেটসের সদস্য দেশগুলোও সবুজ রংয়ের পাসপোর্ট ব্যবহার করে। কিছুটা লালচে রংয়ের পাসপোর্ট ব্যবহার পছন্দ করে ইউরোপিয়ান ইউনিয়নভুক্ত দেশগুলো। একই ধরনের পাসপোর্ট ব্যবহার করে ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের সদস্য হতে চায় এমন দেশগুলোও, যেমন তুরস্ক।

অন্যদিকে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পাসপোর্টের রং ভিন্ন হয়। যদিও দেশটি বিংশ শতাব্দীর শেষার্ধে সবুজ এবং বিভিন্ন ধরণের রংয়ের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে। এটি অবশেষে ১৯৭৬ সালে নীল রঙে স্থাপিত হয়।

ইকোনমিস্টের মতে, আমেরিকান পতাকার নীল রংয়ের সাথে মেলে। ব্রাজিল, আর্জেন্টিনা এবং উরুগুয়েসহ অনেক ক্যারিবিয়ান এবং দক্ষিণ আমেরিকার দেশগুলোর নাগরিকও নীল পাসপোর্ট বহন করেন।

এছাড়া, সুইডিশ নাগরিকের পাসপোর্টের রং গোলাপি, সুইজারল্যান্ড উজ্জ্বল লাল, সিঙ্গাপুরের পাসপোর্টের রং উজ্জ্বল কমলা/লাল রংয়ের কভার থাকে। কানাডার অস্থায়ী পাসপোর্ট বুকের থাকে সাদা কভার। নরওয়ের মসৃণ নতুন পাসপোর্টগুলি সাদা, ফিরোজা বা লাল রঙের হয়ে থাকে। মরক্কো, পাকিস্তান এবং সৌদি আরবসহ মুসলিম দেশের পাসপোর্ট সবুজ। আর ভারতীয় পাসপোর্টগুলো গভীর নীল রংয়ের।

অন্যদিকে, জাতিসংঘের পাসপোর্ট হালকা নীল। জাতিসংঘ শান্তিরক্ষীদের হেলমেটের রংয়ের সাথে মিলিয়ে তাদের পাসপোর্টের রং নীল রাখা হয়েছে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.