কম্বোডিয়ার পাসপোর্ট বহন করছেন থাইল্যান্ডের সাবেক প্রধানমন্ত্রী

30

আর্ন্তজাতিক ডেস্ক: থাইল্যান্ডের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইংলাক সিনাওয়াত্রা কম্বোডিয়ার পাসপোর্ট বহন করছেন। ২০১৭ সালে কম্বোডিয়া হয়েই থাইল্যান্ড ছেড়েছিলেন তিনি। আজ বৃহস্পতিবার সাউথ চায়না মর্নিং পোস্টের বরাত দিয়ে এ খবর প্রকাশ করেছে ব্যাংকক পোস্ট।

থাইল্যান্ডের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এ বিষয়ে মন্তব্য করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে। মন্ত্রণালয়ের মহাপরিচালক বুসাদে সান্তিপিতাক বলেন, এ বিষয়ে আমাদের কাছে কোনো তথ্য নেই। কম্বোডিয়ার পাসপোর্ট বিভাগের এক কর্মকর্তা বলেছেন, ইংলাক থাই নাগরিক, কম্বোডিয়ার নাগরিক নন। আমরা বিদেশিদের জন্য পাসপোর্ট বানাই না।

কম্বোডিয়ার অভিবাসন বিভাগও জানিয়েছে, কম্বোডিয়া হয়েই ইংলাক সিঙ্গাপুর পালিয়েছেন এ বিষয়ে তাদের কাছে কোনো তথ্য নেই। 

২০১১ থেকে ২০১৪ মেয়াদে থাইল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী ছিলেন ইংলাক। তাকে ক্ষমতা থেকে সরিয়ে দেয় সামরিক সরকার। শাসনামলে কৃষকদের ভর্তুকি দেওয়ার নামে বহু কোটি ডলারের দুর্নীতি করা হয়েছে এমন অভিযোগ এনে ইংলাকের বিরুদ্ধে রায় দেয় থাই আদালত। রায় ঘোষণার আগ মুহূর্তেই দেশ ছাড়েন ইংলাক। পরে তার পাসপোর্ট বাতিল করে থাইল্যান্ড।

বর্তমানে ইংলাক দুবাইয়ে স্বেচ্ছা-নির্বাসনে রয়েছেন বলে খবর রয়েছে। দুবাইতে ইংলাকের ভাই ও থাইল্যান্ডের সাবেক প্রধানমন্ত্রী থাকসিন সিনাওয়াত্রাও স্বেচ্ছা নির্বাসনে আছেন। 

Leave A Reply

Your email address will not be published.