জাতীয় শ্রমিক লীগের সভাপতি মন্টুর মৃত্যু

4

ঢাকা: শুক্রবার ভোর ৪টায় রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয় বলে জানিয়েছেন শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক কে এম আজম খসরু।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে তিনি বলেন, “পড়ে গিয়ে পায়ে ব্যথা নিয়ে অক্টোবরের ২৩ তারিখ স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন মন্টু ভাই। তিন দিনের মাথায় তার করোনাভাইরাস পজিটিভ আসে।

“কয়েক দিন পর করোনাভাইরাস থেকে তিনি মুক্ত হয়েছিলেন। কিন্তু ফুসফুসে নানা জটিলতা দেখা দিলে ১২ দিন আগে তাকে আইসিইউতে নেওয়া হয়। আজ ভোর ৪টার দিকে তিনি মারা যান।”

ফজলুল হক মন্টুর বয়স হয়েছিল ৭১ বছর। তিনি স্ত্রী, এক মেয়ে ও এক ছেলে রেখে গেছেন বলে জানান খসরু।

জুমার পর বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে জানাজা শেষে মিরপুর বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে এই মুক্তিযোদ্ধাকে দাফন করা হবে।

ফজলুল হক মন্টুর মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

Leave A Reply

Your email address will not be published.