ধর্ষণকাণ্ডে রোনালদোর ‘ডিএনএ’ চেয়ে পরোয়ানা জারি

39

স্পোর্টস ডেস্ক: ২০০৯ সালের লাস ভেগাসের এক হোটেলে তাকে ধর্ষণ করেছিলেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। এমনই চাঞ্চল্যকর অভিযোগ করেছিলেন ক্যাথরিন মায়োরগা নামের এক নারী। গত সেপ্টেম্বর নেভাদার আদালতে পর্তুগিজ তারকার বিরুদ্ধে মামলা করেছিলেন মায়োরগা। ইতিমধ্যে রোনালদোর বিরুদ্ধে ওঠা ভয়ানক অভিযোগের সত্যতা যাচাই করতে শুরু করেছে লাস ভেগাস পুলিশ। সেই লক্ষ্যে তদন্তও শুরু করেছে তারা। 

রিয়াল মাদ্রিদ ছেড়ে জুভেন্টাসে যোগ দেওয়ার পর থেকে রোনালদো ইতালির তুরিনে বসবাস করছেন। সেখানকার প্রশাসনের কাছে এবার রোনালদোর ডিএনএ চেয়ে পাঠাল লাস ভেগাস পুলিস। ইতালির পুলিশ এবার রোনালদোর ডিএনএ সংগ্রহ করে লাগ ভেগাসে পাঠাবে। তদন্তের ধারা দেখে বোঝা যাচ্ছে, যথেষ্ট গুরুত্ব দিয়েই ব্যাপারটাকে দেখছে লাস ভেগাস পুলিস কর্তৃপক্ষ। 
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, ক্যাথরিনের পোশাকে ডিএনএ খুঁজে পেয়েছে পুলিস। এবার সেই ডিএনএ’র সঙ্গে রোনাল্ডোর ডিএনএ মিলিয়ে দেখতে চান তারা। রোনালদোর আইনজীবী পিটার এস অবশ্য এখনও তার মক্কেলকে নির্দোষ বলে দাবি করছেন। তিনি বলেছেন, ক্রিস্টিয়ানসেন বলেন, ২০০৯ সালে লাস ভেগাসে যা হয়েছিল সেটি আসলে পারস্পরিক সমঝোতার ভিত্তিতে। ফলে ডিএনএ’র মিল থাকার বিষয়টি অবাক করার মতো কিছু নয়। এক্ষেত্রে ডিএনএ সংগ্রহ তদন্তে কতটা সাহায্য করবে তা নিয়ে সন্দেহ রয়েছে। তদন্তের জন্য আরও অনেক পথ রয়েছে। 

এদিকে, লাস ভেগাস মেট্রোপলিটন পুলিসের কর্মকর্তা লরা মেল্টজার পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছেন, আরও পাঁচটা ধর্ষণকাণ্ডের মতোই সমান গুরুত্ব দিয়ে দেখা হচ্ছে এই ব্যাপারটিকে। রোনালদো মহাতারকা বলে তাকে কোনোরকম সুবিধা পাইয়ে দেওয়ার প্রশ্নই নেই। 

Leave A Reply

Your email address will not be published.